English French German Italian Portuguese Russian Spanish

Related Articles

Search

পাহাড় কেটে পুকুর ভরাট ও গণশৌচাগার দখল!

Print
AddThis Social Bookmark Button

 

 

বান্দরবান প্রতিনিধি | তারিখ: ২৫-০৩-২০১৩

 

 

বান্দরবানের লামা উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান গণশৌচাগারসহ সরকারি জমি দখল ও পাহাড় কেটে পুকুর ভরাট করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি পানিপ্রবাহ ঘেঁষে পায়খানাঘর করে লামা পৌরসভার প্রাণ হিসেবে পরিচিত লাইনঝিড়ির পানিও দূষিত করছেন বলে এলাকার লোকজন ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।


লামা উপজেলা চেয়ারম্যান মোহামঞ্চদ ইসমাইল বলেছেন, তিনি পৌর চেয়ারম্যান থাকাকালে ওই পুকুর খনন ও গণশৌগার নির্মাণ করেছেন। সেগুলো দখলের বিষয়টি তিনি শুনেছেন। ঘটনা সত্য হলে ঝিড়ির পানিদূষণসহ পরিবেশগত সমস্যা হতে পারে। তবে বিষয়টি নিয়ে এখন কেউ লিখিত অভিযোগ করেননি বলেও তিনি জানান।


স্থানীয় লোকজন বলেছেন, লামা পৌরসভার লাইনঝিড়ি (ছোট ছড়া) ও লামা-চকরিয়া-আলীকদম সড়কের ত্রিমোহনীসংলগ্ন এলাকায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেতারা বেগম ৪০ শতক জমি কিনেছেন। লাইনঝিড়ির বাসিন্দা জাকির হোসেন ও মোহামঞ্চদ আলম বলেছেন, সেতারা বেগম জমি কিনলেও সেখানকার পুকুর, পাশে সড়ক বিভাগের (সওজ) জায়গা ও গণশৌচাগার সরকারি সম্পদ। কিন্তু তিনি সীমানা খুঁটি স্থাপন করে সওজের জমি ও গণশৌচাগার দখল করেছেন।


সওজের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বলেছেন, সেতারা বেগম সড়কের জায়গা ও গণশৌচাগার দখলের সময় জমি পরিমাপের জন্য তাঁদের ডেকেছিলেন। কিন্তু সেখানে তাঁদের কথায় কোনো কাজ হবে না এবং প্রতিবাদ করলে অপদস্থ হওয়ার আশঙ্কায় তাঁরা যাননি।


অভিযোগের ব্যাপারে সেতারা বেগম বলেছেন, তিনি পাহাড় কাটেননি। প্রতিবেশীরা তাঁদের বাড়ির জন্য ঝুঁকি হওয়ায় পাহাড়ের কিছু অংশ কেটে তাঁর মালিকানার জমির পুকুরের একাংশে মাটি ফেলেছেন। সওজের জমি ও পৌরসভার গণশৌচাগার দখলের কথা অস্বীকার করে সেতারা বেগম বলেছেন, সওজের জায়গা বাদ দিয়ে তিনি সীমানা খুঁটি স্থাপন করেছেন। শৌচাগারটি পরিত্যক্ত ছিল এবং কেউ ব্যবহার করতে চাইলে ফটক খুলে রাখা হবে।


সেতারা বেগম আরও বলেন, লাইনঝিড়ির সংলগ্ন তাঁর জমির ওপর তিনি সংরক্ষণ দেয়াল ও পায়খানাঘর করেছেন। এতে কোনো পরিবেশদূষণের সমস্যা হবে না।


লামা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন বলেছেন, কেউ লিখিত অভিযোগ না দিলেও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেতারা বেগমের লাইনঝিড়ির ব্যাপারে লোকজন প্রতিনিয়ত অভিযোগ করছেন। এ জন্য তিনি সরেজমিনে গিয়ে আপাতত কাজ বন্ধ রাখার জন্য বলেছেন। এখনো তিনি কাজ করছেন কি না, বিষয়টি আরও তদন্ত করা হবে বলে তিনি জানান।

 

 


 

 

Source: prothom-alo

 

 


 

 

 

{jcomments on}

| + - | RTL - LTR